প্রধান খবরবগুড়া জেলা

বগুড়ায় র‍্যাবের হাত থেকে ছিনিয়ে নেয়া হলো বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতাকে

বগুড়ায় ছাত্রলীগের এক নেতাকে আটকের পর র‌্যাবের হাত থেকে ছিনিয়ে নিল ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

মঙ্গলবার বিকেলে শহরের প্রাণকেন্দ্র সাতমাথায় মুজিব মঞ্চের সামনে এই ঘটনা ঘটে।

ছিনিয়ে নেয়া ওই ছাত্রলীগ নেতার নাম আব্দুর রউফ। তিনি বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। নিজ দলীয় ছাত্রনেতা তাকবির ইসলাম খানকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা মামলার প্রধান আসামি তিনি। এই হত্যা মামলার কারণে ছাত্রলীগ থেকে তাকে বহিষ্কার করা হয়।

জানা যায়, সম্প্রতি বগুড়া জেলা ছাত্রলীগের ৩০ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। এই বিরোধীতা করে জেলা ছাত্রলীগের একটি অংশ কমিটি ঘোষণার পর থেকেই প্রতিবাদ, বিক্ষোভ করে আসছে।

সুযোগে ছাত্রলীগের বিদ্রোহীরা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়েও তালা ঝুলিয়ে দেয়। একই জেলা ছাত্রলীগের কার্যালয়ও তালাবদ্ধ করেন তারা। এরপর থেকেই নতুন কমিটির নেতারা তালা ভাঙছেন, বিদ্রোহীরা নতুন করে তালা ঝুলিয়ে দিচ্ছে। এভাবে প্রায় দেড় মাস ধরে চলছে। এর জেরে গতকাল সোমবার রাতে জেলা ছাত্রলীগের কার্যালয়ে অগ্নিসংযোগও করা হয়। এর আগে ছাত্রলীগ কার্যালয়ের দরজা কেটে তুলে নিয়ে যাওয়ার ঘটনাও ঘটে।

চলমান এসব ঘটনার জেরে মঙ্গলবার বিকেলে বিক্ষোভ মিছিল বের করে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সজীব সাহা ও সাধারণ সম্পাদক আল মাহিদুল ইসলাম জয়ের আনুসারীরা। এই বিক্ষোভ মিছিলের মধ্যেই ছিলেন বগুড়া আজিজুল হক কলেজ শাখা ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রউফ। বিক্ষোভ মিছিল শেষে তাকে সাতমাথা এলাকা থেকে র‌্যাবের একটি দল তাকে আটক করেন। বিষয়টি টের পাওয়ামাত্রই ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে জোর করে রউফকে ছিনিয়ে নিয়ে নিয়ে যান।

রউফকে আটকের সময় ঘটনাস্থলে র‌্যাব-১২ এর কোম্পানি কোমান্ডার স্কোয়াড্রন লিডার তৌহিদুল মবিন খান উপস্থিত ছিলেন।

বিষয়টি নিয়ে র‌্যাব-১২ এর কোম্পানি কোমান্ডার স্কোয়াড্রন লিডার তৌহিদুল মবিন খানের সাথে যোগাযোগ করা হলে, কল রেকর্ড থাকার অযুহাতে তিনি এ বিষয়ে কথা না বলে ফোন কেটে দেন। এরপর আবারো যোগাযোগ করার জন্য চেষ্টা করা হলে তিনি আর ফোন রিসিভ করেন নি।

এসএ

এই বিভাগের অন্য খবর

Back to top button