খেলাধুলাপ্রধান খবরফুটবল

স্বপের ফাইনালে মেসির আর্জেন্টিনা

লিওনেল মেসির রেকর্ডগড়া গোলের সঙ্গে জুলিয়ান আলভারেজের জোড়া গোলে বিশ্বকাপের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে আর্জেন্টিনা। ২০১৪ সালের পর আবারও বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠলো আলবিসেলেস্তাররা। ফাইনালে ওঠার পথে রাশিয়া বিশ্বকাপের রানার্স আপ ক্রোয়েশিয়াকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে।

মঙ্গলবার (১৩ ডিসেম্বর) কাতারের লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয় আর্জেন্টিনা ও ক্রোয়েশিয়া। ম্যাচের শুরুতেই ছন্দ খুঁজে পেতেই বেগ পাচ্ছিল আলবিসেলেস্তাররা। ম্যাচের প্রথম আধঘণ্টায় তাই তো মাঠজুড়ে ছিল ক্রোয়াটদের আধিপত্য।

ম্যাচের ৩১তম মিনিটে বলে নিয়ে ক্রোয়াটদের ডিবক্সে হানা দেন জুলিয়ান আলভারেজ। ক্রোয়েশিয়া গোলরক্ষক ডমিনিক লিভাকোভিচ আলভারেজকে থামান ফাউল করে। ডিবক্সে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখেন লিভাকোভিচ। ওই ফাউলের কল্যাণে পাওয়া পেনাল্টি থেকে দলকে প্রথম এগিয়ে নেন লিওনেল মেসি।

এর আগে ম্যাচে ২৪ মিনিটে দূরপাল্লার শট নেন এনজো ফার্নান্দেজ। ওই শট আটকে দিয়ে খেলায় দারুণ কিছুর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন লিভাকোভিচ। অবশ্য শেষ পর্যন্ত কিছুই হয়নি। তিন তিনবার আলবিসেলেস্তারা বল জড়িয়েছে তার জালে।

লিওনেল মেসির স্পট কিক আটকাতে ঠিক দিকেই ঝাপ দিয়েছিলেন লিভাকোভিচ। তবে বল তার মাথার ওপর দিয়ে পাঠানোয় বল আটকানো হয়নি। এতেই এগিয়ে যায় আলবিসেলেস্তাররা। লিভাকোভিচকে দেখানো হলুদ কার্ডের প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে মাতেও কোভাচিচও কার্ড দেখেন।

এর মিনিট পাঁচেক পরে আবারও হানা দেন আলভারেজ। ক্রোয়েশিয়া নিয়েছিল কর্ণার কিক। সেখান থেকে মেসি বল মাঝমাঠে আলভারেজকে বাড়িয়ে দেন। ওই বল মধ্যমাঠ থেকে একা হাতে টেনে নিয়ে আসেন। লিভাকোভিচকে পরাস্ত করে দলের ব্যবধান দ্বিগুণ করে নেন।

২-০ ব্যবধানে এগিয়ে বিরতিতে যায় আর্জেন্টিনা। বিরতি থেকে লিওনেল মেসির দল হয়ে পড়েছিল রক্ষণাত্মক। বিপরীতে দুই গোল হজম করা ক্রোয়াটরাও ঝিমিয়ে পড়েছিল। প্রতি আক্রমণ কিংবা আক্রমণে আর্জেন্টিনার রক্ষণে ছড়াতে পারেনি কোনো ত্রাস।

বিপরীতে ম্যাচের ৬৯ মিনিটে আবারও এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। এবারও স্কোরশিটে নাম তোলে আলভারেজ। ম্যাচে মেসি-আলভারেজ জুটির দ্বিতীয় গোল ছিল এটি। ক্রোয়াটদের বিপদসীমায় বল নিয়ে ঢুকে যান লিওনেল মেসি।

ক্রোয়াটদের রক্ষণে তিন ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে বল জুলিয়ান আলভারেজের দিকে বাড়ান লিওনেল মেসি। ওই বল একরকম প্রথম ছোয়াতেই জালে জড়ান আলভারেজ। এতেই ব্যবধান ৩-০ করে আলবিসেলেস্তাররা।

২০১৮ সালে রাশিয়া বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে মুখোমুখি হয়েছিল এই দুই দল। ওই ম্যাচে ৩-০ ব্যবধানে ক্রোয়াটদের কাছে হেরেছিল আর্জেন্টিনা। এবার সেমিফাইনালে ওই মধুর প্রতিশোধও নিল আলবিসেলেস্তারা। বিশ্বকাপ জয়ে আরও একধাপ এগিয়ে গেল আর্জেন্টিনা।

বিশ্বকাপে দুই এলএম টেনের লড়াইয়ে ল্যাতিনই জিতলেন। এবার তার সামনে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ ছুঁয়ে দেখার দ্বিতীয় সুযোগ। এবার না পারলে হয়তো বিশ্বকাপ জিততে না পারার আক্ষেপ নিয়ে বাজবে তার বিদায় ঘণ্টা। অবশ্য ইউরোপের এলএম টেন লুকা মদ্রিচের বিশ্বকাপ জিততে না পারার আক্ষেপ যুক্ত হয়েই গেল। কয়দিন পর বাজবে তার বিদায় ঘণ্টা।

এই বিভাগের অন্য খবর

এছাড়াও দেখুন
Close
Back to top button