প্রধান খবরসারাদেশ

ইজতেমা ময়দান মানুষে প্রায় পূর্ণ

আগামীকাল শুক্রবার (১৩ জানুয়ারি) থেকে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু হওয়ার কথা থাকলেও গতকাল বুধবার থেকেই হাজারো মানুষ গাজীপুরের টঙ্গীর ইজতেমা ময়দানে অবস্থান নিতে শুরু করেছে।

করোনার কারণে গত ২ বছর ইজতেমা হয়নি। এবার তাই আগেভাগেই সবাই মাঠে এসে উপস্থিত হচ্ছেন।

শীত উপেক্ষা করে বুধবার দুপুরের পর থেকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আগতদের ইজতেমা ময়দানের নির্দিষ্ট খিত্তায় অবস্থান নিতে দেখা যায়। এসেছে বিদেশিরাও। বুধবার সন্ধ্যার আগেই ইজতেমা ময়দান মানুষে প্রায় পূর্ণ হয়ে যায়।

ঢাকা থেকে ২২ কিলোমিটার উত্তরে তুরাগ নদীর তীরে প্রায় ১ বর্গ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে বিশ্ব ইজতেমা আয়োজন করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার বাদ ফজর থেকে শুরু হচ্ছে আ’ম বয়ান। আগামী ১৩, ১৪ ও ১৫ জানুয়ারি প্রথম পর্বের ৩ দিনব্যাপী বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ৪ দিন বিরতি দিয়ে ২০, ২১ ও ২২ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা।

প্রথম পর্বের আছেন যোবায়েরপন্থীরা। দ্বিতীয় পর্বে সাদপন্থীরা।

আয়োজক কমিটি জানায়, ইজতেমায় অংশ নিতে দেশি-বিদেশি মুসল্লিরা আসতে শুরু করেছে। ইতিমধ্যে পুরো ময়দান পূর্ণ হয়ে গেছে। শুক্রবার থেকে মূল পর্ব শুরু হলেও বৃহস্পতিবার বাদ ফজর থেকে শুরু হবে আ’ম বয়ান। প্রায় ২ মাস স্বেচ্ছাশ্রমে তাবলীগ অনুসারীরা ইজতেমা মাঠের প্রস্তুতি শেষ করেন।

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) আনিসুর রহমান জানান, ইজতেমা উপলক্ষে গাজীপুর জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট টিম থাকবে পুরো টঙ্গীজুড়ে।

জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী আলমগীর মিয়া জানান, ইজতেমার জন্য ৩১টি টয়লেট বিল্ডিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। একই সময়ে ৯ হাজার মানুষ এগুলো ব্যবহার করতে পারবেন। বিআরটিসি এবং বাংলাদেশ রেলওয়ে ইজতেমার মুসল্লীদের আনা-নেওয়ায় বিশেষ বাস ট্রেন সার্ভিসের ব্যবস্থা নিয়েছে। ইজতেমা ময়দানের পশ্চিম পাশে তুরাগ নদীর ওপর ৫টি ভাসমান সেতু নির্মাণ করা হয়েছে পারাপারের জন্য।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি) কমিশনার মোল্যা নজরুল ইসলাম জানান, ইজতেমা ময়দান ও আশপাশের এলাকায় সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। পোশাকে এবং সাদাপোশাকে পুলিশসহ দায়িত্বে থাকবে ১০ হাজারের বেশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য। এ ছাড়া, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ বিভাগ ১৪টি কন্ট্রোল রুম তৈরি করেছে। র‌্যাবের কন্ট্রোল রুম থাকবে, ডিএমপি কন্ট্রোল রুম খুলেছে, ওয়াচ টাওয়ার, রুফটফ ডিউটিসহ সিআইডি, নৌ-পুলিশ, অবজারভারভেশন টিম থাকবে। র‌্যাবের হেলিকপ্টার টহলও থাকবে। ডগ স্কোয়াড টিম, মোবাইল পেট্রোল টিম, বম্ব ডিসপোজাল ইউনিট থাকবে।

এই বিভাগের অন্য খবর

Back to top button