খেলাধুলাপ্রধান খবরফুটবল

দুই বছর পর মুখোমুখি রোনালদো-মেসি, পিএসজি’র জয়

টানা দুই বছর পর মাঠে মুখোমুখি ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও লিওনেল মেসি। প্রতিপক্ষ হিসেবে দুজন এই ম্যাচে খেলতে নামার প্রায় শেষ পর্যন্ত দু’জনের মুখে খুশির আভা ছিল। তবে ফুটবল বিশ্বের বর্তমান জাদুকর মেসির ক্ষেত্রে সেই খুশির আভা আরও দীর্ঘ হয়েছিল।

সৌদি ফুটবল নিয়ন্ত্রণ সংস্থার আমন্ত্রণে বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) রাতে দেশটির ফুটবল দল অল স্টারের মুখোমুখি হয়েছিল ফ্রান্সের পিএসজি। রিয়াদের কিং ফাহাদ স্টেডিয়ামে উত্তাপ ছড়ানো এই ম্যাচে ৫-৪ গোলে মেসি-এমবাপ্পে-নেইমাররা জয় পায়।

পুরো ম্যাচে ছিল টানটান উত্তেজনা। একের পর এক আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণের এই ম্যাচটি যারা দেখেছেন তাদের কাছে আজীবনের জন্যই স্মরণীয় হয়ে থাকবে। ম্যাচটি অনেক কারণেই খুব আলোচিত ছিল। নিজের দেশে কিছুটা হতাশ হওয়ার পাশাপাশি ক্লাবেও সুখের সময় যাচ্ছিল না রোনালদোর। যার কারণে ক্লাব পরিবর্তন করে সৌদি আরবের আল নাসের ক্লাবে তার নতুনভাবে শুরুটা হয়েছিল। সে জায়গা থেকে আল নাসের ও আল হেলাল এই দুই ক্লাবের সমম্বয়ে গড়া অল স্টার ক্লাবের হয়ে এটি ছিল মেসিদের সঙ্গে রোনালদোদের শক্তি যাচাই করে নেওয়ার ম্যাচ। সেই যাচাইয়ের ম্যাচে ভালই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছে রোনালদোর দল অল স্টার। 

অন্যদিকে, বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দলের খেলোয়াড় মেসি ও এমবাপ্পে এবং ব্রাজিলিয়ান সেরা খেলোয়াড় নেইমারের জন্যও ছিল ম্যাচটি নিজেদের পরিচিত সীমানার বাইরে পরখ করে নেওয়া। সেই ম্যাচে উৎরে গেছেন তারা।

ম্যাচের শুরুতেই গোল করে দলকে এগিয়ে দেন মেসি। তার কিছুক্ষণের মধ্যে গোল দিয়ে সমতা ফেরান রোনালদো। সৌদির এই আলোচিত প্রীতি ম্যাচে প্রথম ৬০ মিনিটে তিনবার এগিয়ে গেলেও লিড ধরে রাখতে পারেনি মেসিরা। শেষ পর্যন্ত অবশ্য জয়ের হাসি নিয়ে মাঠ ছেড়েছে ফ্রেঞ্চ ক্লাবটি।

ঘরের মাঠে অল স্টার শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক খেলা খেললেও প্রথম আঘাতটা করেছে পিএসজি। ম্যাচের তিন মিনিটেই মেসি গোল করে পিএসজিকে এগিয়ে দেন। নেইমারের পাস থেকে বক্সের বাঁ পাশ থেকে শট নিয়ে অল স্টারের জালে বল জড়ান মেসি। খেলার ৩৪ মিনিটে পিএসজির গোলরক্ষক কেইলর নাভাস রোনালদোকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় অল স্টার। স্পটকিকে গোল করে সমতায় ফেরান রোনালদো।

৩৯ মিনিটে লাল কার্ড দেখে পিএসজির হুয়ান বার্নেট মাঠ ছাড়লে ১০ জনের দলে পরিণত হয় পিএসজি। তবে খেলোয়াড় শূন্যতা বুঝতে দেয়নি জায়ান্ট এই দল। এর ৪ মিনিটের মাথায় আরও একটি গোল করে লিড নেয় দলটি। প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে সবাইকে চমকে দিয়ে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন পর্তুগীজ মহাতারকা রোনালদো।

বিরতির পর খেলা আরও জমে উঠে। ৫৩ মিনিটে সার্জিও রামোস এমবাপ্পের দেওয়া পাসে গোল করেন।

এবারও খুব দ্রুত সমতায় ফেরে অল স্টার। ৫৬তম মিনিটে গঞ্জালো মার্টিনেজের পাস থেকে স্কোরলাইন ৩-৩ করেন হিউন সো। কিন্তু এবারও স্বস্তির নিশ্বাস ফেলতে পারেনি স্বাগতিকরা।

৬০ মিনেট পেনাল্টি থেকে গোল করে পিএসজির এমবাপ্পে।

এবার লিড নিয়ে অল স্টার একাদশকে আর সমতায় ফিরতে দেয়নি পিএসজি। উল্টো ৭৮তম মিনিটে একিটিকের গোলে ২ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে যায় লিগ ওয়ানের চ্যাম্পিয়নরা। এরপরে অল স্টারের টেলিস্কারের গোল ব্যবধান কমালেও হার ঠেকাতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত ৫-৪ গোলে জিতে মাঠ ছাড়ে মেসির পিএসজি।

এই বিভাগের অন্য খবর

এছাড়াও দেখুন
Close
Back to top button